অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিত: সেই কাউন্সিলরের বাড়িতে ইয়াবা

0
45

সোমবার রাতে কাউন্সিলর সাজু সরদারের বাড়ি থেকে ৬১০ ইয়াবা ট্যাবলেট ও ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয় বলে সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি এস এম আব্দুস সোবহান জানান।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার পুলিশ বাদী হয়ে সাজু সরদারের বিরুদ্ধে সুন্দরগঞ্জ থানায় অস্ত্র এবং মাদক দ্রব্য আইনে দুইটি মামলা করেছে।

ওসি সোবহান জানান, সুন্দরগঞ্জ মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ একেএম আতাউর রহমানকে সোমবার দুপুরে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে সোমবার পুলিশ সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাজু সরদারকে গ্রেপ্তার করেছে।

কাউন্সিলর সাজু উপজেলা আওয়ামী লীগ কর্মী এবং উপজেলা সদরের থানা পাড়ার মৃত কামাল উদ্দিনের ছেলে।

ওসি আরও জানান, এর আগে গত ৩০ অগাস্ট রাত সোয়া ৮টার দিকে উপজেলা সদরের বালাপাড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় এলাকায় স্থানীয় কিছু যুবক সাজু সরদারের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে।

“এই ঘটনায় মামলা হলে পুলিশ সুন্দরগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি আহসানুল করিম চাঁদকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায়।”

এরপর এলাকাবাসী মাদক ব্যবসায়ে জড়িত অভিযোগ এনে সাজু সরদার, তার দুই ভাই শামীম সরদার ও লাজু সরদারকে গ্রেপ্তার এবং তাদের বাড়ি তল্লাশির দাবি জানিয়ে পোস্টার দেয় পৌর এলাকায়।

[X]

সাজুর বিরুদ্ধে অভিযোগ, সোমবার দুপুরে অধ্যক্ষ একেএম আতাউর রহমান উপজেলা সদরের সোনালী ব্যাংক সংলগ্ন জনৈক আব্দুল জলিল মিয়ার চালের দোকানে বসে কলেজের ব্যবস্থাপনা কমিটির জনৈক এক সদস্যের সাথে কলেজ সংক্রান্ত বিষয়ে কথাবার্তা বলতেছিলেন। এ সময় সাজু সরদার ও তার লোকজন অধ্যক্ষকে মারপিট করেন। পরে আশপাশের লোকজন অধ্যক্ষকে উদ্ধার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে এবং সাজু সরদারকে আটক করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সাজুকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়।

অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদ

অধ্যক্ষ আতাউর রহমানকে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে নানা কর্মসূচি পালন করেছে এলাকাবাসী।

মঙ্গলবার মানববন্ধন, মৌন মিছিল ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট স্বারকলিপি প্রদান করেছেন শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা।

কলেজ চত্বর থেকে একটি মৌন মিছিল বের হয়ে উপজেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে উপজেলা পরিষদ সড়কে মানববন্ধন করে।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন কলেজের উপাধ্যক্ষ নাসরিন সুলতানা, ওই কলেজের শিক্ষক মাসুদুর রহমান, মিন্টু চাকি প্রমুখ।

বক্তারা কাউন্সিল সাজু সরদারকে মাদক ব্যবসায়ী উল্লেখ করে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। শেষে শিক্ষকদের একটি প্রতিনিধি দল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম গোলাম কিবরিয়ার কাছে একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY