কিভাবে ঘরে বসে মুগ ডাল দিয় ত্বকের যত্ন নিবেন।

0
25

সৌন্দর্য্য কথাটি শুনলেই চোখের সামনে ভেসে উঠবে একটি লাবন্যময় হাসিমাখা মুখের প্রতিচ্ছবি। সুন্দর হতে চায় না এমন মানুষ এই গ্রহে আছে বলে মনে হয় না।

তাই উজ্জ্বল ত্বক রাখতে প্রাকৃতিক নানা উপাদানের ওপর নির্ভর করি। এর মধ্যে ডাল একটি, ত্বকের যত্নে মশুর ডাল আর বেসনের কথাই বেশি শোনা যায়। তবে মুগ ডালও কিন্তু পিছিয়ে নেই।

আমাদের উজ্জ্বল ত্বক ও দাগহীন কোমল মসৃণ রাখতে মুগ ডাল ও দারুণ কাজ করে। আসুন জেনে নিন কীভাবে ব্যবহার করতে হয়…

শুষ্ক ত্বকে:

আপনার মুখের শুষ্ক ত্বক নরম ও নমনীয় করতে মুগডাল সারারাত কাঁচা দুধে ভিজিয়ে ডালের পেস্ট করে ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। ১৫ মিনিট প্যাকমুখে মাখতে হবে। তারপর মুখ ধুয়ে একটা নরম তোয়ালে দিয়ে মুখ মুছে নিন।

ব্রণ দূর করতে:

মুগ ডালের একটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটি ত্বকে তেল ময়লা আটকে পড়তে দেয় না।ব্রণের সমস্যায় মুগ ডাল পেস্টের সঙ্গে ঘি মিশিয়ে আঙুলের ডগা দিয়ে ঘষে ঘষে সারা মুখে মেখে রাখুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে নিন। ফেসপ্যাকটি সপ্তাহে তিন দিন ব্যবহার করতে হবে।

[X]

সান ট্যান:

নিয়মিত রোদে বের হলে সান ট্যান(ত্বক রোদে পোড়া) সাধারণ ঘটনা। ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকর ইউভি রশ্মির হাত থেকে রক্ষা করতে আস্থা রাখুন মুগ ডালে। ডাল পেস্টের সঙ্গে ঠাণ্ডা দই বা আলোভেরা জেল মেশান।তারপর সেই মিশ্রণ আক্রান্ত স্থানে কিছুক্ষণ লাগিয়ে রাখুন। ১০ মিনিট পর ধুয়ে নিন। এটা সপ্তাহে ২ দিন করলেই উপকার পাবেন।

মুখের লোম:

অনেকেরই মুখে লোম থাকে, যদি লোম তুলতে কেমিক্যাল ব্লিচ ব্যবহার করেন, তা ত্বকের জন্য ক্ষতিকর আর থ্রেডিং একটি কষ্টকরপদ্ধতি।এটা থেকে মুক্তি পেতে সারারাত ভিজিয়ে ডালের পেস্ট তৈরি করে সাথে কিছুটা চন্দন গুঁড়া ও কমলা লেবুর খোসা গুঁড়া মেশাতে হবে।প্রয়োজনে সামান্য দুধ মেশাতে পারেন।এই পেস্টটি কয়েকবার মুখে ম্যাসাজ করতে হবে।দুই- তিন বার ব্যবহারের পরই আপনি মুখে মুখের লোমের পরিমাণ কমতে থাকবে।

তাহলে ত্বকের মোটামুটি সব সমস্যার সমাধানই আসতে পারে মুগ ডাল ব্যবহারে। ধৈর্য ধরে প্রাকৃতিক পণ্য ব্যবহার করুন, উজ্জ্বল ত্বকে সুন্দর থাকুন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY