কীভাবে ‍বুঝবেন প্রেমিক মিথ্যা বলছে

0
41

গবেষণায় দেখা যায় কল্পনা থেকে সত্য ঘটনা আলাদা করতে পারার ক্ষেত্রে নারীরা রীতিমতো অন্তর্জ্ঞানী।

মানসিকস্বাস্থ্য-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে কয়েকটি বিষয় এখানে উল্লেখ করা হল, যা আপনার ধারণার সত্যতা যাচাইয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

অতিরিক্ত আত্মরক্ষামূলক আচরণ: যে মিথ্যা বলে সে অকারণেই খুব বেশি আত্মরক্ষার চেষ্টা করে এবং যে কোনো প্রশ্নেই খুব বেশি আবেগপ্রবণ হয়ে যায়। সরাসরি চোখের দিকে তাকায় না এবং সরাসরি উত্তর না দিয়ে অযথা কথা ঘোরাতে থাকে। এমনকি সে আপনার সঙ্গে খারাপ ও আক্রমনাত্মক আচরণও করতে পারে যে, আপনি কেনো তাকে সন্দেহ করছেন!

তার কাছে কোনো উত্তর নেই: যে সত্য কথা বলে সে কোনো দ্বিধা ছাড়াই আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে আপনার সঙ্গে কথা বলবে। অন্যদিকে যে মিথ্যা বলছে সে আপনাকে জটিল ও চতুর উত্তর দেবে এবং দেরি করানোর চেষ্টা করবে।

[X]

অপ্রস্তুতভাবে কথা বলা: মিথ্যা বলার সময় সঙ্গীর কথার ভঙ্গি বেশ অপরিচিত ও অপ্রস্তুত মনে হতে পারে। মানুষ যখন মিথ্যা বলে বা কিছু গোপন করতে চায় তখন তার স্বাভাবিক কথন ভঙ্গি ও স্বরে অবচেতনভাবেই পরিবর্তন আসে। তার মাঝে অস্বস্তি, মানসিক বিষ্ফোরণ ও দীর্ঘক্ষণ চুপ হয়ে থাকার প্রবণতা দেখা দেয়।

কথার বিষয় বস্তু পরিবর্তন করতে চাওয়া: তার ভুলগুলো ধরে ফেললে বা পরাস্ত্র হওয়ার উপক্রম হলে কথার মূল বিষয়বস্তু পরিবর্তনের চেষ্টা করে। যার কোনো কিছু লুকানোর নেই সে কখনই বিষয়বস্তুর পরিবর্তন করতে চাইবে না। একজন মিথ্যুক তার কথার সঙ্গে অপ্রাসঙ্গিক বর্ণনা তুলে ধরবে। এতে আপনি নিজে দ্বন্দ্বে পড়ে যাবেন এবং যেমনটা চলছে তেমনই চলতে দেবেন।

আরও কিছু বিষয়: মাঝে মধ্যে সঙ্গী কথা বলতে বলতে খেই হারিয়ে ফেলতে পারে বা তার আচরণে পরিবর্তন আসতে পারে। তার কথা মন দিয়ে শুনুন এবং কোনো অপ্রাসঙ্গিকতা দেখা দিলে তাকে জিজ্ঞেস করুন। সে কি সবসময় লুকোচুরি করে, তার ফোন কি সবসময় পাসওয়ার্ড দেওয়া থাকে অথবা তার ‘সার্ফিং হিস্ট্রি’ সরানোর বিষয়ে সে সব সময় সচেষ্ট থাকে?

এমনটা যদি হয় তাহলে বুঝতে হবে সে কিছু লুকাচ্ছে।  নিজেকেই একবার জিজ্ঞেস করে দেখুন যার লুকানোর মতো কিছু নেই সে কেনো এত তৎপর থাকবে সব কিছু আড়াল করতে!

আর মনে রাখবেন- শুধু পুরুষদের জন্য নয়, নারীদের ক্ষেত্রেও উপরের বিষয়গুলো ঘটতে পারে

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY