কৃষিপণ্যের কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টির সাজা জেল-জরিমানা, সংসদে বিল

0
33

সোমবার কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বিলটি সংসদে উত্থাপনের পর সেটি তিন কার্যদিবসের মধ্যে পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়।

প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে, লাইসেন্স ছাড়া প্রজ্ঞাপিত বাজারে বিপণন, লাইসেন্স ছাড়া গুদাম ও হিমাগার পরিচালনা করলে এবং কৃষিপণ্যের রপ্তানি, আমদানি করলে অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে।

এছাড়া অতিরিক্ত চার্জ আদায়, কর্মচারীকে বাধা, কৃষিপণ্যের পাইকারি ও খুচরা বিক্রয় মূল্য প্রদর্শন না করলে, কৃষিপণ্যে ক্ষতিকারক রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করলে, ওজনে কম দিলে অপরাধ হিসেবে গন্য বলেও প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে।

[X]

এসব অপরাধের জন্য এক বছরের জেল ও এক লাখ জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। একই অপরাধ পুনরায় করলে দ্বিগুণ দণ্ড হবে।

এ আইনের অধীনে অপরাধগুলোর জন্য মোবাইল কোর্ট দণ্ড দিতে পারবে বলে প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে।

১৯৫৯, ১৯৬৪ ও ১৯৮৫ সালে বিভিন্ন সময় কৃষি বাজার ব্যবস্থাপনা, পণ্য ক্রয়-বিক্রয় নিয়ে আইন করা হয়। এসব আইন প্রয়োজনীয় সংশোধন করে বিলটি আনা হয়েছে।

বিলের উদ্দেশ্য সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, “কৃষকের উৎপাদিত কৃষিপণ্যের উপযুক্ত মূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করার পাশাপাশি সুষ্ঠু বাজার ব্যবস্থাপনার সম্প্রসারণ, কৃষি ব্যবসার উন্নয়ন, কৃষিপণ্য উৎপাদন ও বিপণন কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে গতিশীলতা আনতে এবং দেশের কৃষিজ অর্থনীতি শক্তিশালী করার উদ্দেশ্যে বিলটি আনা হয়েছে।”

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY