ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ভেতরে বাইরে ভূমিধস!

গত মার্চে বল টেম্পারিং-কাণ্ডে স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও ক্যামেরন ব্যানক্রফট নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকেই টালমাটাল অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট। মাঠে একের পর এক হার। মাঠের বাইরেও উইকেট পড়ছে টপাটপ! রীতিমতো অলআউট হওয়ার পথে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)!

কোচ ড্যারেন লেম্যানের পদত্যাগের মধ্যদিয়ে প্রথম উইকেটের পতন ঘটেছিল। গত মাসে বোর্ডের প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে সরে দাঁড়ান জেমস সাদারল্যান্ড। সম্প্রতি বল টেম্পারিং কেলেংকারি নিয়ে স্বাধীন পর্যালোচনা কমিটির প্রতিবেদন প্রকাশের পর তীব্র সমালোচনার মুখে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড আরেকদফা ভূমিধস শুরু হয়েছে।

প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, নীতি-নৈতিকতা বিসর্জন দিয়ে যে কোনো মূল্যে জেতার অসি ক্রিকেট সংস্কৃতির পেছনে খেলোয়াড়দের চেয়ে বোর্ড কর্তাদের দায় বেশি। প্রতিবেদন প্রকাশের একদিন পরই চাপের মুখে পদত্যাগ করেন সিএ চেয়ারম্যান ডেভিড পিভার। তার সম্ভাব্য উত্তরসূরি ভাবা হচ্ছিল অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক ও বোর্ডের পরিচালক মার্ক টেলরকে। কিন্তু দু’দিন আগে টেলরও পরিচালকের পদ থেকে সরে দাঁড়ান।

সেই ধারাবাহিকতায় বুধবার আরও দুটি উইকেটের পতন ঘটল। সিএ’র টিম পারফরম্যান্স বিভাগের প্রধান প্যাট হাওয়ার্ড কাল জানিয়ে দিয়েছেন, চুক্তির এক বছর বাকি থাকতেই আগামী সপ্তাহে সরে দাঁড়াবেন তিনি। হাওয়ার্ডের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন অস্ট্রেলিয়া নারী ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক বেলিন্ডা ক্লার্ক।

এছাড়া বোর্ডের সম্প্রচার ও বিপণন বিভাগের প্রধান বেন আমারফিও কাল পদত্যাগ করেছেন। নতুন প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্টস জানিয়েছেন, নতুন নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটে একটি নতুন যুগের সূচনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *