পাক-ভারত শুধুই আগুনে লড়াই? বিনিময় হয় হৃদয়ের উষ্ণতাও

0
2

দুবাইয়ে কাল একই সময়ে অনুশীলনে নেমেছিল ভারত ও পাকিস্তান। এ সময় ভারতের শিবিরে গিয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন পাকিস্তানের অলরাউন্ডার শোয়েব মালিক। দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের মধ্যে এই সম্ভাষণ বিনিময় ইতিবাচক সাড়া ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে

ক্রিকেটের ময়দানে ভারত-পাকিস্তান লড়াইকে সীমান্ত যুদ্ধ বলেই মনে করেন রবিচন্দ্র অশ্বিন। দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে এই দ্বৈরথ ভীষণ উত্তেজনার। আগুনে ম্যাচ বলতে যা বোঝায় আরকি। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোয় সেই আগুনের মাঝেই যেন ফুটছে সম্প্রীতির ফুল!

গত এশিয়া কাপ থেকে শুরু করা যায়। সেই টুর্নামেন্টে বিরাট কোহলির কাছে একটি ব্যাট চেয়েছিলেন মোহাম্মদ আমির। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দলের খেলোয়াড় হলেও কোহলি কিন্তু আমিরের আবদার রেখেছিলেন। গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানি পেসারকে নিজের একটি ব্যাট উপহার দিয়েছিলেন কোহলি। তখন আমিরের অভিব্যক্তি ছিল দেখার মতো। সংবাদমাধ্যমেও আলোড়ন তুলেছিল দুজনের এই সম্প্রীতির দৃশ্য।

[X]

সেই টুর্নামেন্টে আরেকটি ঘটনা পাক-ভারত দ্বৈরথ নিয়ে ইতিবাচক ছাপ ফেলেছিল ক্রিকেটপ্রেমীদের। ইডেন গার্ডেনে অনুশীলনের ফাঁকে সুরেশ রায়নাকে দেখে তাঁকে জড়িয়ে ধরেছিলেন শোয়েব মালিক। করমর্দন করে দুই প্রতিবেশীর দ্বৈরথকে দিয়েছিলেন অন্য মাত্রা। আসলে মাঠের লড়াইয়ে যত শত্রুতাই থাকুক না কেন মাঠের বাইরে দুই দলের মধ্যকার ক্রিকেটারদের মধ্যে সৌজন্য বিনিময় নতুন কিছু নয়। আর শোয়েব মালিক ভারতের জামাই বলেই হয়তো আলাদা একটা নৈকট্য অনুভব করেন। পাকিস্তানি এই অলরাউন্ডারকে এবারের এশিয়া কাপেও দেখা গেছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের শিবিরে গিয়ে সৌজন্য বিনিময় করতে।

দুবাইয়ে কাল একই সময়ে অনুশীলনে নেমেছিল ভারত ও পাকিস্তান। এ সময় ভারতের শিবিরে গিয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গে গিয়ে দেখা করেন শোয়েব মালিক। এ সময় দুজন হাত মিলিয়ে হালকা মেজাজে বেশ কিছুক্ষণ মজাও করেছেন। ধোনিকে দেখা গেল রোদ চশমা খুলে হাসতে হাসতে কী যেন বলছেন। শোয়েবও হেসে হেসে তার জবাব দিচ্ছেন। দুজন হয়তো ফিরে গিয়েছিলেন ১১ বছর আগের বিশ্বকাপে। ২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক ঘটেছিল ধোনির। তখন পাকিস্তানের অধিনায়ক ছিলেন শোয়েব মালিক। আর ধোনির সেই অভিষেকের দিনটা ছিল কাল!

শোয়েব হয়তো ধোনিকে সেই স্মৃতিই মনে করিয়ে দিয়েছেন। দুজনের কেউ এখন আর দলের নেতৃত্বে নেই। কিন্তু ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। দুই দলের এই দুই সিনিয়র খেলোয়াড়ের সম্প্রীতি নিঃসন্দেহে অন্য মাত্রা যোগ করেছে এবার এশিয়া কাপের ভারত-পাকিস্তান দ্বৈরথে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দুজনের এই সম্ভাষণ বিনিময় ভীষণ সাড়া ফেলেছে। বুধবার দুবাইয়ে ভারতের মুখোমুখি হবে পাকিস্তান।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY