প্রিয় বন্ধুকে বিয়ে করলে ৪ সমস্যা হতে পারে

0
48

বন্ধুত্ব ছাড়া যে ভালবাসা হয় না এমন মত অনেকেরই। বন্ধুকেই তো মনের সব কথা খুলে বলা যায়। আর এমন ধারণা থেকেই প্রিয়তম বন্ধুটিকে অনেকেই জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নেন। কিন্তু গবেষণা বলছে, অনেক ক্ষেত্রেই এমন সিদ্ধান্ত কিন্তু বুমেরাং হয়ে দাঁড়ায়। দাম্পত্যের গেরোয় বন্ধু ও বন্ধুতাও জানলা দিয়ে পালিয়ে যায়। প্রিয় বন্ধুকে বিয়ে করলে ঠিক কী কী সমস্যা হতে পারে জানেন?

১. প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে প্রেম হলে অনেক ক্ষেত্রেই তাড়াতাড়ি বিয়ের পিঁড়িতে বসে পড়ে কাপল। আর প্রেম সাগরে ডুব দিলে ব্যক্তিগত লক্ষ্য গৌণ হয়ে যায়। একে অপরের হাত ধরেই কেটে যাবে বাকিটা জীবন, এমন মনোভাব তৈরি হলেই সমস্যা। ভাল চাকরি বা উন্নতির সুযোগ পেলেও পরস্পরের থেকে দূরে থাকার সিদ্ধান্ত নেওয়াটা তখন বেশ কঠিন হয়ে পড়ে।

[X]

২. গভীর বন্ধুত্বকে প্রেম ভাবার ভুলও করে বসেন অনেকে। পরস্পরের পছন্দ-অপছন্দ, ভাল-মন্দের খেয়াল রাখাটাকে অনেকে ভুলবশত ভালবাসা বলে ধরে নেন। আর সেই বন্ধুত্ব পরিণয়ে পরিণত হওয়ার পর প্রশ্ন জাগে, প্রেম কোথায়? দাম্পত্য জীবনে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বন্ধুতা এক জিনিস, আর বন্ধুকে স্বামী বা স্ত্রী হিসেবে ভালবাসা অন্য জিনিস। সেই আবেগ-ঘনিষ্ঠতা না থাকলে বন্ধুত্বও যেন তিক্ত হয়ে ওঠে।

৩. দাম্পত্যের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ যৌনতা। যৌন জীবন সুখের হলে ভালবাসায় গভীরতা বাড়ে। অটুট হয় বিয়ের সম্পর্ক। কিন্তু যিনি খুব ভাল বন্ধু, তিনি যে ভাল যৌনসঙ্গীও, তেমনটা নাও হতে পার। বন্ধুত্বের ভালবাসার টান আর যৌন আকাঙ্খা সম্পূর্ণ ভিন্ন। আর এখানেই সম্পর্কে চিড় ধরে।

৪. দুই প্রিয় বন্ধুর মধ্যে বচসা শুরু হলে বিতর্ক কী মোড় নেয় বোঝা দায়। কিন্তু সে ঝগড়ায় যে কেউই হার মানতে চান না, তা বলাই বাহু্ল্য। কে কাকে থামাবেন, কেই বা কাকে সান্ত্বনা দেবেন! যিনি এককালে তৃতীয় ব্যক্তি হয়ে নানা ঝড় ঝঞ্ঝায় আপনার পাশে দাঁড়িয়েছেন, এখন তো শত্রুপক্ষ তিনি নিজেই। দাম্পত্যের গেরোয় সেই বন্ধুই কেমন যেন অচেনা হয়ে যায়। তাই বেস্ট ফ্রেন্ডকে বেটারহাফ বানানোর আগে সবদিক ভেবে নেওয়াই শ্রেয় নয় কি?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY