ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন: যে কারনে সরে দাঁড়ালেন লুলা, হাদ্দাদকে সমর্থন

0
3

তার বদলে রানিংমেট ফার্নান্দো হাদ্দাদকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে বিজয়ী করতে সমর্থকদের প্রতি আহ্বানও জানিয়েছেন ব্রাজিলে তুমুল জনপ্রিয় এ বামপন্থি রাজনীতিক।

মঙ্গলবার দেশটির ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা গ্লেইসি হফম্যান পুলিশ সদরদপ্তরের বাইরে লুলার সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তের কথা জানান বলে খবর বিবিসির।

দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত ৭২ বছর বয়সী লুলা এ পুলিশ সদরদপ্তরেই ১২ বছরের দণ্ড ভোগ করছেন।

সাবেক এ প্রেসিডেন্ট অবশ্য শুরু থেকেই তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলোকে অস্বীকার করে আসছেন। অক্টোবরের নির্বাচনে অংশ নিতে না দেয়ার পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই তাকে মিথ্যা মামলায় সাজা দেওয়ার চক্রান্ত চলছে বলে রায়ের আগে অভিযোগ করেছিলেন সাবেক এ ট্রেড ইউনিয়ন নেতা।

সপ্তাহ দুয়েক আগে ব্রাজিলের সাংবিধানিক আদালত ‘দণ্ডিত লুলা নির্বাচনে দাঁড়াতে পারবেন না’ বলে রায় দিয়েছিল। সাবেক প্রেসিডেন্টের আইনজীবীরা আপিল করেও সিদ্ধান্তটির বদল ঘটাতে পারেননি।

নির্বাচনী প্রচারে কট্টর ডানপন্থি রাজনীতিক জাইর বোলসোনারোর ছুরিকাহত হওয়ার কয়েকদিনের মাথায় নিজের প্রার্থীতা প্রত্যাহারের এ ঘোষণা দিলেন লুলা।

হামলার পর থেকে ৬৩ বছর বয়সী বোলসোনারোর জনপ্রিয়তা বাড়ছে বলে জনমত জরিপগুলোতে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। ৭ অক্টোবর প্রথম দফার নির্বাচনেও তিনিই শীর্ষস্থান পাবেন বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও ওয়ার্কার্স পার্টির আশা, দ্বিতীয় দফার ভোটে তাদের প্রার্থী হাদ্দাদই বাজিমাত করবেন।

[X]

জেলখানা থেকে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে লেখা এক চিঠিতে নিজের প্রার্থীতা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান লুলা। মঙ্গলবার পুলিশ সদরদপ্তরের বাইরে সেটি পড়ে শোনান হফম্যান। লুলাকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদস্বরূপ এ সদরদপ্তরের বাইরেই পাঁচ মাস ধরে তার অসংখ্য সমর্থক অবস্থান চালিয়ে যাচ্ছিলেন।

চিঠিতে ২০০৩ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট থাকা লুলা সমর্থকদের প্রতি হাদ্দাদকে জয়ী করতে সর্বাত্মক চেষ্টারও আহ্বান জানান।

লুলার মন্ত্রিসভায় শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা হাদ্দাদ ২০১৩ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত ব্রাজিলের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ শহর সাও পাওলোর মেয়রও ছিলেন।

ওয়ার্কার্স পার্টি এবারের নির্বাচনে লুলাকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী করলে, ৭২ বছর বয়সী রাজনীতিক নিজেই হাদ্দাদকে ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন।

লুলার সিদ্ধান্তের পর থেকে ওয়ার্কার্স পার্টি ‘হাদ্দাদই লুলা’ স্লোগান নিয়ে সামনে এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে।

জরিপ সংস্থা আইবিওপিই-র সর্বশেষ হিসাবেও ৫৫ বছর বয়সী হাদ্দাদের জনপ্রিয়তার পারদ উর্ধ্বমুখী বলে দেখানো হয়েছে। ২৮ শতাংশ জসমর্থন নিয়ে বোলসোনারোই এখনও এগিয়ে আছেন বলেও জানিয়েছে তারা।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহের ভোটে কট্টর ডানপন্থি বোলসোনারোই শীর্ষে থাকবেন।

লুলার ভাবমূর্তিকে কাজে লাগাতে পারলে দ্বিতীয় দফার ভোটে হাদ্দাদ সোশাল লিবারেল পার্টির প্রার্থীকে ছাড়িয়ে যাবেন বলেও ধারণা তাদের।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY