রহস্যজনক ভাবে দুই শতাধিক নেতা কর্মীকে গ্রেপ্তারের অভিযোগ -বিএনপির

0
51

সোমবার বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, “আজকে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ও গাজীপুর, বাগেরহাট ও মেহেরপুরসহ সারাদেশে শান্তিপূর্ণ মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করতে আসা ও যাওয়ার পথে সরকারের আজ্ঞাবহ পুলিশ বাহিনী বিনা উসকানিতে দুই শতাধিক নেতা-কর্মীকে আটক করেছে, নির্বিচারে গ্রেপ্তার করেছে। এই গ্রেপ্তারে রক্ষা পায়নি সাধারণ মানুষসহ নেতাদের গাড়ি চালকরাও।

“মানববন্ধন কর্মসূচির উপর পুলিশি এই আক্রমণ নৃশংস দস্যুতার নামান্তর মাত্র। তাহলে মানববন্ধন কর্মসূচির অনুমতি দিয়েছিলেন কী ওঁৎ পেতে গ্রেপ্তার করার জন্য? আমরা সরকারকে বলে দিতে চাই, এতে আপনাদের শেষ রক্ষা হবে না। যতই ট্রেন, লঞ্চে চড়ুন না কেন ডুবন্ত নৌকাকে আর ভাসানো যাবে না। “

রাজধানীতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে দলের জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সহ সম্পাদক সাবেক ছাত্র নেতা মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, আবদুল মতিন, লেবার পার্টির যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুল আলম, গাজীপুর মানববন্ধন থেকে প্রয়াত নেতা আসম হান্নান শাহের বড় ছেলে শাহ রিয়াজুল হান্নান ও স্থানীয় কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নু প্রমুখসহ যুব দল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্র দলের নেতৃবৃন্দ গ্রেপ্তাকৃতদের মধ্যে রয়েছেন রিজভী জানান।

[X]

তিনি বলেন, “আজকে দেখেছেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ও গাজীপুরে মানববন্ধনের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশের উন্মত্ততা। মানে ওঁৎ পেতে ছিল- বিএনপির এই কর্মসূচি শুরু হওয়ার সাথে সাথে তাদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে নির্বিচারে গ্রেপ্তার করবে। এটা যেন পুলিশের আগে থেকে পরিকল্পনা ছিল।

“এই পরিকল্পনামাফিক পুলিশ গাজীপুরে নির্বিচারে গুলি করেছে, নির্বিচারে গ্রেপ্তার করেছে। সেখানে বিনা উসকানিতে পুলিশ আমাদের কর্মসূচি পণ্ড করার চেষ্টা করেছে। জেলা সভাপতি ফজলুল হক মিলনকে কিছুক্ষণ আটকিয়ে রেখে পরে ছেড়ে দিয়েছেন। অনেক নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমরা এহেন ঘটনা ও গ্রেপ্তারের নিন্দা জানাই।”

ঢাকায় গ্রেপ্তার হওয়া ঢাকা মহানগর, যুব দল,স্বেচ্ছাসেবক দল, ছাত্র দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তারের তালিকা তুলে ধরেন অবিলম্বে গ্রেপ্তারকৃতদের মুক্তির দাবি জানান রিজভী।

খালেদা জিয়ার ‍মুক্তির দাবিতে ঢাকাসহ সারাদেশে মহানগর ও জেলা সদরে এক ঘণ্টার মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে বিএনপি।

জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলার রায়ে পাঁচ বছরের সাজায় খালেদা জিয়া গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরনো ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রয়েছেন।

নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন হয়।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন, সহ নার্সেস বিষয়ক সম্পাদক জাহানারা বেগম এসময় উপস্থিত ছিলেন

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY